সিলেটে ফের পাথরবাহী ট্রাকে মিলল ২৪৫ বস্তা ভারতীয় চি‌নি : আটক ১

post-title

ছবি সংগৃহীত

সিলেটে ফের ট্রাকে থাকা পাথরের স্তরের নিচে থেকে ২৪৫ বস্তা ভারতীয় চোরাই চিনিসহ একজনকে আটক করেছে মহানগরের শাহপরাণ থানা পুলিশ। আটক মো. রাসেল আহমেদ জৈন্তাপুরের ঠাকুরের মাটি এলাকার মো. আবুল আমিনের ছেলে।

শুক্রবার (২১ জুন) বিকেলে সাড়ে ৫টার দিকে নগরীর শিবগঞ্জের হাতিমবাগস্থ তামাবিল-সিলেট সড়কের সৈয়দ হাতিম আলী মাজার সামনে থেকে এসব অবৈধ পণ্য জব্দ করা হয়। এক সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর পুলিশের মিডিয়া কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পুলিশের অভিযান পরিচালনাকালে সুরমা গেইট বাইপাস এলাকায় সিয়েরা-৬৬ ডিউটি পাটির্র সিগন্যাল অমান্য করে পালানোর কারণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে গাড়ীচালক রাসেল আহমেদ একেক সময় একেক ধরনের কথা বলায় সন্দেহ হলে আটককৃত ব্যক্তির শরীর ও ট্রাক গাড়টি তল্লাশী করা হয়। 

তল্লাশীর সময় আটককৃত মো. রাসেল আহমেদ ট্রাকটিতে পাথরের নিচে ভারতীয় চিনি আছে বলে জানালেও ভারতীয় চিনি সংক্রান্তে কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারে নাই।

তখন একটি হলুদ রঙের ড্রাম ট্রাক যার রেজি. নম্বর-সিলেট মেট্রো-ট-১১-০২৮৮, যার চেচিস ননম্র- MAT449019M2R18621, ইঞ্জিন নম্বর- B591803212M63890604 এবং পাথরের নিচে থাকা ত্রিপল দিয়ে মোড়ানো ভারতীয় ২৪৫ বস্তা চোরাই চিনি জব্দ করা হয়। এসব চিনির বর্তমান বাজার মূল্য  ১৪ লাখ ৪০ হাজার ৬০০ টাকা।

এছাড়া ঘটনায় আটক মো. রুবেল মিয়ার বিরুদ্ধে এসএমপির শাহপরাণ (রহ.) থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামীকে বিধি মোতাবেক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে ১৪ জুন (শুক্রবার) বিকেলে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের শাহপরান থানা এলাকার সুরমা বাইপাস থেকে ট্রাক থামিয়ে তল্লাশি করে পাথরের নিচে ত্রিপল দিয়ে মোড়ানো ২০০ বস্তা ভারতীয় চি‌নি খুঁজে পাওয়া যায়।এসময় ট্রাকটি জব্দের পাশাপাশি দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার দুজন হলেন রাজশাহীর বেলপুকু‌রিয়ার মো. সালাউদ্দিন ও দুর্গাপুরের মো. মহশিন। এ ঘটনায় পু‌লিশ বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করে।

এসএ/সিলেট