সিলেটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশুসহ নিহত ২

post-title

প্রতীকী ছবি

সিলেটে পৃথক দুটি স্থানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক শিশু ও এক নারী নিহত হয়েছেন।
বুধবার (১৯জুন) সিলেটের দক্ষিণ সুরমা ও গোয়াইনঘাট উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত দুজন হলেন-দক্ষিণ সুরমার ঝালোপাড়ার মিনতি রানী (৪০) ও গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি ইউনিয়নের হাদারপার বাজারের নাজমিন আক্তার (১০)।


বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ সুরমা থানার কদমতলি ফাঁড়ির ইনচার্জ দেবাংশু পাল ও গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম পিপিএম।

জানা যায়, বুধবার (১৯ জুন) বিকাল ৬টার দিকে দক্ষিণ সুরমার ঝালোপাড়ায় মন্দিরের পানির পাম্পে সুইচ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মিনতি রানী (৪০) গুরুতর আহত হলে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মিনতি নগরীর ঝালোপাড়ার নৃসিংহ জিউর আখড়ার পার্শ্ববর্তী বাসার বাসিন্দা।

এব্যাপারে দক্ষিণ সুরমা থানার কদমতলি ফাঁড়ির ইনচার্জ দেবাংশু পাল বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মিনতি রানীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার ময়না তদন্ত হবে কি না এ বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি।
এদিকে, একইদিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি ইউনিয়নের হাদারপার বাজার সংলগ্ন উপরঘামে নাজমিন আক্তার (১০) বিদ্যুৎস্পষ্ট হয়ে মারা যান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাত ৮ টা থেকে অন্যান্য শিশুদের সাথে লুকোচুরি খেলা করছিল নাজমিন আক্তার। লুকোচুরি খেলার এক পর্যায়ে বিদ্যুৎ শট সার্কিটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই নাজমিন মারা যায়।

নাজমিন আক্তার বিছনাকান্দি ইউনিয়নের উপরঘাম গ্রামের আব্দুলাহ মিয়ার দ্বিতীয় মেয়ে। এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম পিপিএম বলেন, উপরঘামে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কন্যা শিশুর মৃত্যুর খবর পেয়েছি। লাশটির পরবর্তী আইনানুগ পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ প্রেরণ করা হয়েছে।

এসএ/সিলেট