দেশবাসীকে ঈদ উপহার দিলো টাইগাররা

post-title

ছবি সংগৃহীত

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা। এমন উৎসবের দিনে আনন্দ আরও বেড়ে যায় যখন ঈদ সালামী পাওয়া যায়। এই ঈদের দিনে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামে বাংলাদেশ। নেপালের বিপক্ষে জিতলে নিশ্চিত হবে সুপার এইট। আর হারলেই পড়তে হবে সমীকরণের মারপ্যাঁচে।

এমন ম্যাচে দুর্দান্ত এক জয় পেয়েছে টাইগাররা। বাংলাদেশের এমন জয় দেশের মানুষের সালামী পাওয়ার মতোই! কেননা টাইগারদের জয়েই ঈদের খুশি দ্বিগুণ হয়েছে দেশের মানুষের।

গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেপালকে ২১ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ে ৪ ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে থেকে সুপার এইটে উঠলো টাইগাররা। অথচ দিনের শুরুটা ছিল হতাশার। এলোমেলো ব্যাটিংয়ে মাত্র ১০৬ রানের পুঁজি পায় বাংলাদেশ। যা কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দেয়।

সোমবার (১৭ জুন) সেন্ট ভিনসেন্টে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠান নেপালের অধিনায়ক রোহিত পৌড়েল। টস হেরে ব্যাট করতে নেপালের বোলারদের তোপের মুখে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ১৯ ওভার ৩ বলে ১০৬ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২২ বলে ১৭ রান করেন সাকিব।

ব্যাটারদের হতাশা মুছে ফেলেছে বোলাররা। ১০৭ রানে টার্গেটে ব্যাট করতে নামলে নেপালের ব্যাটারদের চেপে ধরে টাইগাররা বোলাররা। বিশেষ করে পেসার তানিজম হাসান সাকিব রীতিমতো ভুগিয়েছেন নেপালের ব্যাটারদের। তার বোলিং তোপে দলীয় ২৬ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে নেপাল।

এই ৫ উইকেটের মধ্যে একাই চার উইকেট নিয়ে নেপালের ব্যাটিং লাইন ধসিয়ে দেন তানজিম সাকিব। এরপর কুশল মাল্লা ও দীপেন্দ্র সিং লড়াই চালান। তবে মোস্তাফিজ রহমানের সামনে দাঁড়াতে পারেননি তারা। ফিজের দুধর্ষ বোলিংয়ে ১৯ ওভার ২ বলে ৮৫ রানে অলআউট হয় নেপাল।

কুশল ৪০ বলে ২৭ ও দীপেন্দ্র ৩১ বলে ২৫ রান করেন। বাংলাদেশের পক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ৭ রান খরচায় তানজিম সাকিব নেন ৪টি ও মোস্তাফিজ নেন ৩টি উইকেট।

এসএ/সিলেট