সিলেটে যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র ঈদ-উল-আজহা উদযাপিত

post-title

ছবি সংগৃহীত

যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় ঈদের জামাত আদায় ও পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে আজ সারা দেশের ন্যায় সিলেটে পবিত্র ঈদ-উল-আজহা উদযাপিত হয়েছে। মুসলমানদের পবিত্র  এ ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষ্যে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও সড়কদ্বীপে বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক খচিত ব্যানারে সজ্জিত করা হয়।

নগরীর ঐতিহাসিক শাহী ঈদগাহ ময়দানে পবিত্র ঈদ-উল-আজহার প্রধান ঈদের জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হয়। বৃষ্টির কারণে বেশির ভাগ মুসল্লিরা পার্শ্ববর্তী মসজিদে ঈদের জামাত আদায় করায় জামাতে মুসল্লিদের অংশগ্রহণ কম ছিল। শাহী ঈদগাহে ঈদের নামাজের ইমামতি করেন বন্দরবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আবু হুরায়রা।

শাহী ঈদগাহ ময়দানে ঈদের জামাতে অংশ নেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতা, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তিবর্গ এবং ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। নামাজ শেষে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি, অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। পরে মুসল্লিরা পরস্পর ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

দরগাহে হযরত শাহ দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহঃ) জামে মসজিদ ও বন্দরবাজারের কালেক্টরেট জামে মসজিদে সকাল ৮টায়; জজ কোর্ট জামে মসজিদ, রেজিস্ট্রারী মাঠ ও সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠে সকাল সাড়ে ৭ টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও সিলেট নগরীর হযরত শাহপরান (রঃ) মাজার ঈদগাহ, গাজী বুরহান উদ্দীন (রঃ) জামে মসজিদ, নগরীর সুবহানিঘাট শাহজালাল দারুসসুন্নাহ ইয়াকুবীয়া মাদ্রাসাহ মসজিদ, টিলাগড় ঈদগাহ, কাজিরবাজার মাদ্রাসা মাঠ, কানিশাইল ঈদগাহ, নবাবী মসজিদ ঈদগাহ, পাঠানটুলা নবাবী ঈদগাহ, টুকের বাজার শাহী ঈদগাহ, মইয়ারচর  কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ঈদগাহ, বরইকান্দি ঈদগাহসহ নগরীর বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে  সকাল সাড়ে ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে পবিত্র ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়। তবে টানা বৃষ্টির কারণে অনেক জায়গায় ঈদের জামাতের সময়সূচিতে কিছুটা পরিবর্তন দেখা যায়।

এদিকে সুষ্ঠুভাবে ঈদের জামাত ও ঈদের যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতাসহ ঈদ উৎসব নির্বিঘ্নে পালনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী স্ব স্ব এলাকায় তাদের তৎপরতা অব্যাহত রাখে। ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষ্যে বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশুসদন, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হয়।
        


এসএ/সিলেট