ইজারার বাইরে কেউ অবাদে বালু তুলতে পারবে না: বিভাগীয় কমিশনার

post-title

ছবি সংগৃহীত

বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) আবু আহমদ ছিদ্দীকী, এনডিসি সিলেট বিভাগের জেলা প্রশাসকবৃন্দের উদ্দেশে বলেছেন, আমাদের নদীগুলোতে সরকারিভাবে যে বালুমহাল ইজারা দেওয়া হয়েছে তার বাইরে যেন কেউ অবৈধভাবে বালু তুলতে না পারে। নির্ধারিত সীমানার বাইরে অবাধে বালু ও পাথর তুলে প্রকৃতি ও পরিবেশের ক্ষতি করতে না পারে সেদিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে।

সিলেটে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের আয়োজনে বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে  বুধবার (১২ জুন) ‘পাথর মহাল, বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা সহজিকরণঃ অংশীজনের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মোহাম্মদ রোকন উদ্দিনের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) দেবজিৎ সিংহ। সেমিনারে বিভাগের জেলা প্রশাসকবৃন্দ তাদের নিজ এলাকার পাথরমহাল ও বালুমহাল সম্পর্কে করণীয় ও বিস্তারিত উপাত্ত উপস্থাপন করেন। এতে সিলেট বিভাগের সকল স্তরের সরকারি কর্মকর্তা, শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, আইনবিদ, সাংবাদিকবৃন্দ ও পরিবেশকর্মীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হবে উল্লেখ করে বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) আবু আহমদ ছিদ্দীকী, এনডিসি বলেন, বৈধভাবে পাথরমহাল ও বালুমহাল ইজারা দিয়ে প্রশাসন প্রকৃতি ও পরিবেশের সুরক্ষায় ভূমিকা রাখতে পারবে। পাশাপাশি ইজাদারদের নজরদারি ও নিয়ন্ত্রণ করতে সুবিধা হবে। এতে অবৈধভাবে বালু ও পাথর উত্তোলন বন্ধ হবে।

বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) আবু আহমদ ছিদ্দীকী, এনডিসি ‘পাথরমহাল, বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা সহজিকরণঃ অংশীজনের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনার সফল করার জন্যে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি সেমিনার থেকে সুপারিশকৃত প্রস্তাবানাসমূহ পাথরমহাল, বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক নতুন বিধিমালাতে যুক্ত করার আশ্বাস প্রদান করেন।

এসএ/সিলেট