দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে মিডিয়ার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: ভারতের সহকারী হাইকমিশনার

post-title

ছবি সংগৃহীত

সিলেটে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার চন্দর শেখর বলেছেন, দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে মিডিয়ার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার সম্পর্ক অত্যন্ত নিবিড়। সংস্কৃতি, খাদ্যাভ্যাস ও ঐতিহাসিক দিক দিয়েও দুদেশের মধ্যে অনেক মিল রয়েছে। আগামীতে দুদেশের মধ্যকার বিদ্যমান সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় ও শক্তিশালী হবে। 

মঙ্গলবার (১১ জুন) সিলেট প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় এতে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সিলেটস্থ ভারতীয় হাইকমিশনের সেকেন্ড সেক্রেটারী মানস কুমার মুস্তাফি। আলোচনায় অংশ নেন-সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, সাবেক সহ-সভাপতি এনামুল হক জুবের, হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী ও এম এ হান্নান, সাবেক কোষাধ্যক্ষ কবীর আহমদ সোহেল, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক শেখ আব্দুল মজিদ, পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক কবির আহমদ, কার্যনির্বাহী সদস্য সুনীল সিংহ, ক্লাব সদস্য মো. আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, খালেদ আহমদ, এ কে কাওছার, সহযোগী সদস্য হুমায়ূন কবির লিটন প্রমুখ। সহকারী হাইকমিশনার এ মতবিনিময় সভা আয়োজনের জন্য সিলেট প্রেসক্লাবকে ধন্যবাদ জানান। 

মতবিনিময়কালে সাংবাদিকদের ভারতীয় ট্যুরিস্ট ভিসা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে দীর্ঘসূত্রতার বিষয়টি তুলে ধরা হয়। জবাবে সহকারী হাইকমিশনার জানান, তারা বর্তমানে মেডিকেল ভিসাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন এবং লোকজন দ্রুততম সময়ে মেডিকেল ভিসা পাচ্ছে। আরজেন্ট নিড (জরুরি প্রয়োজন হিসেবে) মেডিকেল ভিসার প্রতি তাদের গুরুত্ব বেশি বলে তিনি জানান। 

সভাপতির বক্তব্যে প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবির বলেন, ভারত-বাংলাদেশ বন্ধুপ্রতিম দেশ। নিকট প্রতিবেশী হিসেবে এখানকার লোকজন ভারতে যেতে চায়। এ জন্য ভারতীয় ভিসাপ্রাপ্তি সহজতর করার পরামর্শ দেন তিনি। 

এর আগে আগে সিলেট প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটিকে হাইকমিশনের পক্ষ থেকে সহকারী হাইকমিশনার ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকেও হাইকমিশনারকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।  


এসএ/সিলেট