মেজরটিলায় টিলা ধসে আটকা ৩ জন, উদ্ধারে সেনাবাহিনী

post-title

ছবি সংগৃহীত

সিলেট নগরের মেজরটিলারর চামেলিবাগ এলাকায় টিলা ধসে একই পরিবারের তিনজন মাটিচাপা পড়েছেন। সোমবার সকাল ৬টার দিকে ভারি বৃষ্টিতে ভূমধসে ঘর ভেঙে তাদের উপর পড়ে যায়। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস নিঁখোজদের উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে।

নিখোঁজরা আগা করিম উদ্দিন, তার স্ত্রী রুজি বেগম এবং তাদের ছয় মাস বয়সী সন্তান তানিম। বেলা সাড়ে ১২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের উদ্ধারে অভিযান চলছে।


শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হারুনূর রশীদ চৌধুরী  জানান- ভারী বৃষ্টির কারণে টিলার মাটি ধসে একটি আধাপাকা ঘরের উপরে পড়ে যায়। ঘরের নিচে ৩ জন লোক আটকা পড়েছেন। ঘরটি টিলার নিচেই ছিলো।

তিনি বলেন, সকাল ৭টার দিকে ভূমিধসের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

চামেলিবাগের অবস্থান সিলেট সিটি করপোরেশনের ৩৫ নং ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এই বাসায় দুই ভাই তাদের স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে থাকতেন। ভূমি ধসে ঘরের নিচে ৬ জন আটকা পড়েছিলেন। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও আমরা এসে এক ভাই, তার স্ত্রী ও তাদের সন্তানকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করতে পেরেছি। তবে আরেক ভাই, তার স্ত্রী ও ১ বছরের সন্তান এখনো আটকা আছেন।

কাউন্সিলর বলেন, বৃষ্টির কারণে উদ্ধার আভিযান কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া রাস্তা ছোট হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিস ও সিটি করপোরেশনের গাড়ি ঢুকতে পারছে না। তাই হাত দিয়েই উদ্ধার কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট কাজ করছে। সঙ্গে পুলিশ, সিসিক কর্মী ও স্থানীয়রা সহযোগিতা করছেন।

সোমবার দুপুরে যুক্তরাজ্য ফিরেই সরাসরি দুর্ঘটনাস্থলে যায় সিলেট সিটি মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, দুর্ঘটনাস্থলে যাওয়ার গলিটি অত্যন্ত সরু। যে কারণে ফায়ার সার্ভিস ও সিসিকের গাড়ি বা মাটি কাটার যন্ত্র ঢুকানো যাচ্ছে না। উদ্ধার তৎপরতা ম্যানুয়ালি চালানো হচ্ছে।

মেয়র বলেন, প্রয়োজনে সেনাবাহিনীকে অনুরোধ করবো এই ৩ জনকে উদ্ধার করে দেওয়ার জন্য।

এসএ/সিলেট