পত্রিকা সংগ্রাহক, শালিশ ব্যক্তিত্ব মুদাব্বির হোসেন আর নেই

post-title

ফাইল ছবি

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বিশিষ্ট পত্রিকা সংগ্রাহক ও শালিশ ব্যক্তিত্ব মো. মুদাব্বির হোসেন আর নেই। তিনি শনিবার (১ জুন) ভোররাত ১২টা ৪৫ মিনিটে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৭৫ বছর।  তিনি ১ ছেলে, ১ মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

দক্ষিণ সুরমার সিলাম (শেখপাড়া) গ্রামের বাসিন্দা মো. মুদাব্বির হোসেন সিলেট দলিল লেখক সমিতি, শহিদ বুদ্ধিজীবি ডক্টর মুক্তাদির একাডেমি, সিলাম শাহী ঈদগাহ কমিটি সহ বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। 

মরহুমের জানাযার নামায আজ শনিবার বেলা ২টায় সিলাম শাহী ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।  পরে তাঁর লাশ শাহ তৈয়ব ছয়লানী (র.)এর মাজার গোরস্থানে দাফন করা হবে।

মো. মুদাব্বির হোসেন ছিলেন পেশায় একজন দলিল লেখক, নেশায় পত্রিকা পাঠক। তিনি ১৯৬৫ খ্রিষ্টাব্দ থেকে কাগজ পড়ার শুরু করেন। আর পড়ে ফেলা পত্রিকাগুলো বিক্রি করে না দিয়ে সংরক্ষণ করতেন অতি যত্নে। দেখতে দেখতে পুরোনো পত্রপত্রিকার বিশাল এক সংগ্রহশালা গড়ে উঠেছে তাঁর বাড়িতে। বাড়ির পাঁচটি কক্ষে সাজানো রয়েছে কয়েক হাজার দৈনিক, সাপ্তাহিক ও ম্যাগাজিন। সিলেটের প্রাচীনতম পত্রিকা থেকে শুরু করে বর্তমান সময়ের নানা পত্রিকা রয়েছে তাঁর সংগ্রহশালায়।

সিলেটের বহু পুরোনো পত্রিকা যুগভেরী থেকে শুরু করে বর্তমান সময়ের নানা পত্রিকা ও ম্যাগাজিন রয়েছে এই সংগ্রহশালায়। সিলেট থেকে ১৯৩০ সালে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্র যুগভেরীর সাপ্তাহিক ও দৈনিক, বিলুপ্ত আজকের সিলেট, দৈনিক বৃহত্তর সিলেটের মানচিত্র, সিলেট প্রতিদিন, সিলেট সমাচার, জালালাবাদী, সিলেট কণ্ঠ, সিলেট ধ্বনি, অনুপমসহ বিভিন্ন পত্রিকা রয়েছে মুদাব্বিরের সংগ্রহে। এ ছাড়া আছে ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পাকিস্তান, উর্দু পত্রিকা জং, হক কথা (ভাসানী সম্পাদিত), আজাদ, গণকণ্ঠ, নব অভিযান, জনপদ, মুক্তিযুদ্ধকালীন পত্রিকা জয়বাংলা, অগ্রদূত, চরমপত্র, দৈনিক বাংলা, জাহানে নও, ইত্তেসান, বাংলার বাণী, দৈনিক রূপালী ও খবর। রয়েছে বর্তমান সময়ের আজকের কাগজ, ইত্তেফাক, ইনকিলাব, খবর, সংবাদসহ আরও অনেক দৈনিক। আর সাপ্তাহিকের মধ্যে রয়েছে হলিডে, রূপসী বাংলা, রূপকথা। ম্যাগাজিনও সংগ্রহে কম নেই। এই তালিকায় রয়েছে বেগম, বিচিত্রা, চিত্রালী, পূর্বাণী, পূর্ণিমা, খবরের কাগজ, চলতিপত্র, যায়যায়দিন, আগামী ও প্রিয়জন।

এদিকে, দক্ষিণ সুরমার বিশিষ্ট পত্রিকা সংগ্রাহক ও শালিশ ব্যক্তিত্ব মো. মুদাব্বির হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রেসক্লাব, সিলেটের সভাপতি চঞ্চল মাহমুদ ফুলর ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম। তারা মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এসএ/সিলেট