সিলেটে ফের রেকর্ড ভেঙ্গে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা : অতিষ্ঠ জনজীবন

post-title

ফাইল ছবি

সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বইছে। গত ১৬ মে মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড গড়ে সিলেট। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সেটি ভেঙে মৌসুমের তাপমাত্রা হয়েছিল ৩৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শুক্রবার (২৪ মে) বেলা ৩টায় ৩৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করে আবহাওয়া অধিদপ্তর সিলেট। এটিই চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত সিলেটের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

এমন গরমে নাজেহাল মানুষ। বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষেরা রয়েছেন কষ্টে। এর মধ্যে আবার আবহাওয়া অধিদপ্তর তাপমাত্রা বাড়ার আভাস দিয়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো. সজীব হোসাইন বলেন, সন্ধ্যা ছয়টার রেকর্ডে যদি তাপমাত্রা আর না বাড়ে তাহলে ৩৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। প্রচণ্ড তাপপ্রবাহে নাজুক অবস্থা জনজীবনে। 

বৃহস্পতিবার বেলা তিনটার রেকর্ড অনুযায়ী সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগে গত ১৬ মে সিলেটে চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল।

অনেকেই জরুরি কাজ না থাকলে বাইরে বের হচ্ছেন না। বেশি বিপাকে পড়েছেন নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষ। এই অসহ্য গরমকে উপেক্ষা করেও কাজ করতে হচ্ছে।

সিলেট আবহাওয়া কার্যালয়ের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মোহাম্মদ সজীব হোসেন আরও জানান, দেশে সাধারণত মার্চ, এপ্রিল, মে ও জুনে গরম বেশি থাকে। এই সময়ে গরম কিছুটা কমে বৃষ্টি হলে। আগামী কয়েক দিন এ রকম গরম থাকতে পারে। তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে। সাধারণত তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কম হলে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ হিসেবে ধরা হয়। আর ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রির কম তাপমাত্রাকে মাঝারি এবং ৪০ থেকে ৪২ ডিগ্রির কম তাপমাত্রাকে তীব্র তাপপ্রবাহ বলা হয়। সে হিসাবে সিলেটে মৃদু তাপপ্রবাহ চলছে।

এসএ/সিলেট