সিসিক কর্তৃক ভৌতিক হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপির মানববন্ধন

post-title

ছবি সংগৃহীত

সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেছেন, আওয়ামী সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বিধায় জনগণের প্রতি তাদের কোন দায়বদ্ধতা নেই। তারা দুর্নীতি আর লুটপাটের মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। নিত্যপণ্যের দাম প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে। তারা ঠিকমতো বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ করতে না পারলেও দফায় দফায় দাম বৃদ্ধি করেছে।

নগরীতে হোল্ডিং ট্যাক্স ৫ থেকে এক লাফে ৫০০ গুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। যা নগরবাসীর জন্য মরার উপর খাঁড়ার ঘাঁ । সিটি কর্পোরেশনের এমন সিদ্ধান্তে পুরো নগরবাসী ক্ষুব্ধ। আমরা বিএনপি হোল্ডিং ট্যাক্সের বিপক্ষে নই। তবে তা হতে হবে সহনীয় পর্যায়ে। অবিলম্বে অস্বাভাবিক হারে বর্ধিত ভৌতিক হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। অন্যথায় সিলেটের জনগণ ক্ষুব্ধ রাস্তায় নেমে গেলে পরিনতি হবে ভয়াবহ। 

তিনি রোববার (১১ মে) দুপুরে মহানগর বিএনপির উদ্যোগে সিসিক কর্তৃক অস্বাভাবিক হারে হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরী পরিচালনায় নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, সৈয়দ মঈনুদ্দিন সোহেল, জিয়াউল হক জিয়া, আমির হোসেন, মহানগর বিএনপির নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ সাফেক মাহবুব, মহানগর আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মুর্শেদ আহমদ মুকুল, মহানগর যুবদলের সভাপতি নেওয়াজ বক্ত তারেক, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মাহবুবুল হক চৌধুরী, মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটি সাবেক সদস্য আক্তার রশিদ চৌধুরী, মতিউল বারী চৌধুরী খূর্শেদ, আফজাল উদ্দিন, আবুল কালাম, হাজী ডা. মো. আশরাফ আলী, লল্লিক চৌধুরী,  মহানগর ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতিদের মধ্যে বদরুদ্দোজা বদর, শেখ কবির আহমদ, আব্দুল হাকিম, মির্জা বেলায়েত হাসান লিটন, আব্দুর রহিম মল্লিক, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি নিগার সুলতানা ডেইজি ও সাধারণ সম্পাদক ফাতেমা জামান রোজি, মহানগর জাসাসের আহবায়ক তাজ উদ্দিন মাসুম, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মির্জা সম্রাট, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব আফসর খান, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি জুবের আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিনার, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি আহসান, মহানগর শ্রমিক দলের আহবায়ক আব্দুল আহাদ, সালেহ আহমদ গেদা, মো. লুৎফুর রহমান মোহন, খায়রুল ইসলাম খায়ের, আব্দুল ওয়াদুদ মিলন, মো. তারেক খান, মো. বাচ্চু মিয়া, সবুর আহমদ, মো. নাজিম উদ্দীন, মিজান আহমদ, আমিনুল ইসলাম, ফখর উদ্দিন মো. পংকি, আব্দুল মুনিম, শাহজাহান মিয়া, সেলিম আহমদ সেলু, আজিজুল হোসেন আজিজ, জাহাঙ্গীর হোসেন, মানিক মিয়া, রেজাউর রহমান রুজন, কয়েস আহমদ সাগর, মো. রফিকুল ইসলাম রফিক, মামুন ইবনে রাজ্জাক রাসেল, আব্দুল আজিজ লাকি, সাব্বির আহমদ, দেওয়ান আরাফাত চৌধুরী জাকি, সৈয়দ লোকমানুজ্জামান, সৈয়দ রহিম আলী রাসু, আব্দুস সবুর রাসেল, জমজম বাদশা, মো. সুলেমান হোসেন সুমন, জাকির হোসেন মজুমদার ও যুবদল নেতা তোফাজ্জল হোসেন বেলাল।


এসএ/সিলেট