জকিগঞ্জে দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে চার

post-title

ছবি সংগৃহিত

সিলেটের জকিগঞ্জে দুটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত আরেক কিশোর মিলন আহমদের (১৮) মৃত্যু হয়েছে। সবশেষ রোববার সন্ধ্যায় ঢাকা শেখ হাসিনা বার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
মিলন জকিগঞ্জের খলাছড়া ইউনিয়নের মাদারখাল গ্রামের সোবহান আলীর ছেলে এবং জকিগঞ্জ সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র।
গত শুক্রবার তিন বন্ধু আদিল হোসাইন, জাকারিয়া আহমদ ও মিলন আহমদ একসঙ্গে মোটরসাইকেল নিয়ে ঈদ পরবর্তী বেড়াতে বের হয়েছিলেন। রাতে জকিগঞ্জ-সিলেট সড়কের শাহবাগ মুহিদপুর এলাকায় বিপরীতমুখী আরেকটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে তাদের মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।
এতে গুরুতর আহত হ আদিল হোসাইন (২১), জাকারিয়া আহমদ (২০) ও মিলন আহমদ (১৮) এবং অপর মোটরসাইকেলের আরোহী বিয়ানীবাজার উপজেলার মাথিউরা ইউনিয়নের মিনারাই গ্রামের রাজু আহমদের ছেলে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র রেদওয়ান আহমদ ফুয়াদ (১৮)।
স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আদিল হোসাইন ও জাকারিয়া আহমদকে মৃত ঘোষণা করেন। মিলন আহমদ ও রেদওয়ান আহমদ ফুয়াদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ওই রাতেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রেদওয়ান আহমদ ফুয়াদ মারা যান। সর্বশেষ রোববার সন্ধ্যা রাতে মিলন আহমদও মারা গেলো। এ নিয়ে ওই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় চার তরুণ মর্মান্তিকভাবে প্রাণ হারালেন।
জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাবেদ মাসুদ মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, ময়নাতদন্ত শেষে মিলনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

SI/03/150424