দুই জমজ শিশু কোলে নিয়ে স্বামী হত্যার বিচার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

post-title

ছবি সংগৃহিত

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানাধীন সিলাম ইউনিয়নের রুস্তমপুর তলাপাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে আব্দুল কাইয়ুম হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার দাবি করেছেন তার স্ত্রী সিফা বেগম। ঘটনার তিন সপ্তাহের বেশি অতিবাহিত হলেও আসামিরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি।

সোমবার (১ এপ্রিল) সিলেট প্রেসক্লাব ও সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন সিফা বেগম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘প্রকাশ্যে আমার স্বামী আব্দুল কাইয়ুমকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আসামিরা চিহ্নিত হলেও কাউকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। তাই, এতিম দুই শিশুকে কোলে নিয়ে স্বামী হত্যার বিচার চাইতে আজ হাজির হয়েছি।’

সিফা বলেন, ‘গত প্রায় পাঁচ মাস আমাদের জমজ দুটি কন্যা সন্তান (শাহিদা ও জাহিদা) জন্ম নেয়। বিয়ের পর সুখেই কাটছিল আমাদের সংসার জীবন। কিন্তু হঠাৎ করেই আমার সুখের সংসার তছনছ হয়ে যায়। গত ৭ মার্চ বসত বাড়িতে প্রকাশ্যে হামলা চালায় সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা।’

তিনি বলেন, ‘একই বাড়ির আমার ভাশুরের ছেলে আবুল বাশার সুমেল, রুমেল, পারেন, মেয়ে সুমা বেগম এবং ভাশুরের স্ত্রী নুরজাহান আক্তার সেলি ও পাশের বাড়ির সুরুজ আলীগংরা আমার স্বামীকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তারা আমার সংসারে সুখের আলো নিভিয়ে দিয়ে উল্লাস করছে।’

এ ঘটনায় মোগলাবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘স্বামী হত্যার ঘটনায় তিন সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও চিহ্নিত আসামিরা আজও রয়েছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় তারা গ্রেপ্তার হচ্ছে না। আমার বিশ্বাস পুলিশ তৎপর হলে হত্যাকারীরা ধরা পড়বে।’

সিফা বেগম পুলিশ প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করে আসামিদের গ্রেপ্তার করে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসার মাধ্যমে স্বামী হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। একইসঙ্গে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুনজর কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে শিপা বেগমের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. শাহ আলম।

উল্লেখ্য, সোমবার সিলেট প্রেসক্লাব ও সিলেট জেলা প্রেসক্লাব থেকে পৃথকভাবে গণমাধ্যমে প্রেরিত ইমেইলে সংবাদ সম্মেলনের এই তথ্য জানানো হয়। উল্লিখিত বিষয়ে সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরের পক্ষ থেকে স্বতন্ত্রভাবে অনুসন্ধান এবং কারো কোন বক্তব্য নেওয়া হয়নি।

SI/06/020424