রাশিয়ায় কনসার্ট হলে হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬০

post-title

ছবি সংগৃহীত

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় কনসার্ট হলে মুখোশ পরা বন্দুকধারীদের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬০ জন হয়েছে। আহত হয়েছেন ১৬৫ জন। হামলায় বিস্ফোরক দ্রব্যও ব্যবহার করা হয়। কয়েক দশকের মধ্যে রাশিয়ায় সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলাগুলোর একটি ছিল এটি।

এ ঘটনার জন্য কারা দায়ী, সে বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে রাশিয়া। বিখ্যাত রক ব্যান্ড পিকনিকের কনসার্ট উপভোগ করতে দশক–শ্রোতারা যখন ওই হলে আসন গ্রহণ করছিলেন, ঠিক তখন ভয়াবহ এ হামলা চালানো হয়।

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএস-কে (ইসলামিক স্টেট খোরাসান) কনসার্টে হামলার দায় স্বীকার করেছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা।

হামলার ওই ঘটনায় বিবৃতি দিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র ফারহান হক। তিনি বলেন, ‘মস্কোয় কনসার্ট হলে হামলায় অন্তত ৪০ জন নিহত ও শতাধিক ব্যক্তি আহত হওয়ার ঘটনার সম্ভব সর্বোচ্চ কড়া ভাষায় নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘপ্রধান।’ নিহত ব্যক্তিদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া বিষয়ে রুশ কর্তৃপক্ষের ঘোষণার আগে এ বিবৃতি দেওয়া হয়। গুতেরেস এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যক্তিদের শোকাহত পরিবার, রাশিয়ার জনগণ ও সরকারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন বলেও উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

মস্কোর ক্রাসনোগোরস্ক অঞ্চলে কনসার্ট হলে হামলাকে জঘন্য ও কাপুরুষোচিত কর্মকাণ্ড বলে কঠোর ভাষায় নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। তারা বলেছে, নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা এ নিন্দনীয় সন্ত্রাসী কাজে জড়িত অপরাধী, সংগঠক, অর্থের যোগানদাতা ও পৃষ্ঠপোষকদের জবাবদিহি করানো এবং তাদের বিচারের আওতায় আনার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছে।

কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ–ক্যানেল বলেন, ‘মস্কোয় নৃশংস সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানাচ্ছে কিউবা। রাশিয়ার সরকার ও জনগণের প্রতি আমাদের গভীর আন্তরিক সমবেদনা।’

এলিসি প্রাসাদের এক বিবৃতিতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো বলেছেন, ক্রোকাস সিটি হলে ইসলামিক স্টেটের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান তিনি। এ ঘটনার ভুক্তভোগী ব্যক্তি, তাদের স্বজন ও রুশ জনগণের প্রতি ফ্রান্স তার সংহতি প্রকাশ করছে।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ বলেছে, তাদের সদস্যরা এ নিন্দনীয় সন্ত্রাসী কাজে জড়িত অপরাধী, সংগঠক, অর্থের জোগানদাতা ও পৃষ্ঠপোষকদের জবাবদিহি করানো এবং তাদের বিচারের আওতায় আনার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছে।

হামলার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মস্কোর কাছে ক্রোকাস সিটি হলে নিরীহ মানুষের ওপর রোমহর্ষক হামলার চিত্রগুলো ভয়াবহ। হামলার নেপথ্যে কারা, তা দ্রুত স্পষ্ট করতে হবে। হামলার শিকার ব্যক্তিদের পরিবারগুলোর প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা।’

এ হামলাকে জঘন্য সন্ত্রাসী কাজ বলে আখ্যায়িত করেছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনি। তিনি বলেন, ‘মস্কোয় নিরপরাধ বেসামরিক লোকজনের ওপর চালানো ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড অগ্রহণযোগ্য।’ হামলায় ভুক্তভোগী ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের প্রতি মেলোনি তাঁর পূর্ণ সংহতির কথা জানান।

হামলার নিন্দা জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জন কিরবি। তিনি বলেছেন, ‘হামলার দৃশ্যগুলো ভয়ানক ও দেখার মতো নয়। এই ভয়ানক গুলিবর্ষণের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের পাশে আমরা নিশ্চয়ই থাকব।’

এদিকে ভেনেজুয়েলার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইভান গিল বলেন, ‘মস্কোর প্রদর্শনীকেন্দ্র ক্রোকাস সিটি হলে শুক্রবার,২২ মার্চ বেসামরিক নাগরিকদের ওপর চালানো সশস্ত্র হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি আমরা।’ এ ঘটনায় ভুক্তভোগীদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও রুশ সরকারের প্রতি সংহতি জানান তিনি।

এসএ/সিলেট